1. admin@sylhetkushiara.com : admin :
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৯:০৫ পূর্বাহ্ন
প্রধান খবর
সিলেট মহানগর বিএনপি’র আহবায়ক কমিটি: আব্দুল কাইয়ুম পংকি আহবায়ক, মিফতাহ সিদ্দিকী সদস্য সচিব সিলেট জেলা ও মহানগর কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে গোলাপগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক দলের মিছিল দ্রুততম সময়ের মধ্যে ইউনিয়ন, পৌর/উপজেলা ও জেলা বিএনপির কাউন্সিল সম্পন্ন করতে হবে —–ডাঃ এ.জেড.এম জাহিদ হোসেন এসির বাজারে ধস নামাবে যুক্তরাষ্ট্রের তৈরী সাদা রং শিক্ষাব্যবস্থায় নতুন নীতিমালা চূড়ান্ত; বিলুপ্ত হচ্ছে পিইসি-জেএসসি, এসএসসি’তে থাকছে না বিভাগ এ্যাডঃ মাওলানা রশীদ আহমদ এর মৃত্যুতে বিএনপি নেতা আমিন উদ্দিন আহমদ এর শোক প্রকাশ প্রধানমন্ত্রী বরাবরে সুনির্দিষ্ট কিছু প্রস্তাবনা ও দাবী সম্বলিত স্মারকলিপি প্রদান করলো: ক্যাম্পেইন ফর রিকগনিশন ইউকে করোনাসংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে গোলাপগঞ্জ উপজেলায় ইউনিয়নভিত্তিক টিকাদান কার্যক্রমের তারিখ ঘোষণা আব্দুল লতিফ তানু মিয়া’র মৃত্যুতে কুশিয়ারা যুব কল্যাণ পরিষদ সিলেটের শোক প্রকাশ অভিবাসন ও আশ্রয় বিষয়ক নতুন একটি সংস্থা খুলতে যাচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)
add

অভিবাসন ও আশ্রয় বিষয়ক নতুন একটি সংস্থা খুলতে যাচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)

  • সোমবার, ৫ জুলাই, ২০২১
  • ৩৫৪ বার পড়া হয়েছে

সিলেট কুশিয়ারা ডেস্ক : ইউরোপীয় ইউনিয়নের আশ্রয় পদ্ধতি আরও কার্যকর ও অভিন্ন করার উদ্দেশ্যে অভিবাসন ও আশ্রয় বিষয়ক নতুন একটি সংস্থা খুলতে যাচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)।

ইউরোপীয় সংসদ ও ইউরোপীয় কাউন্সিল মঙ্গলবার অভিবাসন ও আশ্রয় বিষয়ক নতুন একটি সংস্থা প্রতিষ্ঠার বিষয়ে একমত হয়েছে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন এজেন্সী অফ এসাইলাম নামের নতুন এই সংস্থা পূর্বের ইউরোপীয় আশ্রয় সহায়তা অফিস (ইএএসও)’কে প্রতিস্থাপন করবে।

এই চুক্তিটি ইউরোপীয় কমিশন কর্তৃক ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরের শেষে প্রস্তাবিত আশ্রয় ও অভিবাসন বিষয়ক প্যাক্টের অন্তর্ভুক্ত একটি বিধানকে সম্মত করে। ঐ প্যাক্টের আওতায় স্বাক্ষরিত এটি দ্বিতীয় চুক্তি। এর আগে চলতি বছরের মে মাসে “উচ্চ শিক্ষিত দক্ষ” অভিবাসী কর্মীদের জন্য “ব্লু কার্ড” নির্দেশনার সাথে সম্পর্কিত একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল।

নতুন এই সংস্থার কাজ কি হবে ?
ইউরোপীয় আশ্রয় সহায়তা অফিস (ইএএসও) কে এখন থেকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন এজেন্সী অফ এসাইলাম বলা হবে। ইইউভুক্ত ২৭টি সদস্য রাষ্ট্রের প্রতিনিধিরা ২৯ জুন এ বিষয়ে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছেন। এই নতুন সংস্থার একটি শক্তিশালী ক্ষমতা থাকবে। এটি সদস্য রাষ্ট্রগুলিকে প্রযুক্তিগত ও কারিগরি সহায়তা প্রদান করতে সক্ষম ৫০০ বিশেষজ্ঞ বিশিষ্ট একটি দল গঠন করবে। এই ৫০০ জনের মধ্যে দোভাষী এবং অনুবাদকদেরও সম্পৃক্ত করা হতে পারে।

এই সংস্থা সদস্য রাষ্ট্রগুলোর আশ্রয় ব্যবস্থা আরও অভিন্ন করার জন্য এবং আশ্রয় আবেদন প্রক্রিয়া আরও দক্ষ ও কার্যকর করার লক্ষ্যে সহায়তা করবে। ইইউ কমিশনের প্রাথমিক প্রস্তাবনায় বলা হয়েছে, “এটি হবে দক্ষতার একটি পূর্ণাঙ্গ কেন্দ্র যেটি সদস্য দেশগুলোর সরবরাহিত তথ্য এবং দক্ষতার উপর নির্ভরশীল থকবে না৷”

নতুন সংস্থাটি পূর্বের ইএএসও’র তুলনায় আরো বেশি সংখ্যক জনশক্তি নিয়োগ করবে এবং বিভিন্ন আবেদন ও কর্মসূচি মোকাবেলায় নতুন এই সংস্থাটিকে আরও বেশি তহবিল সরবরাহ করা হবে।

ইউরোপীয় কমিশন প্রেসিডেন্ট ফন ডেয়ার লাইয়েন এই চুক্তির প্রশংসা করেছেন। তিনি টুইটারে লিখেছেন, “এটি ইইউতে আমাদের আশ্রয় পদ্ধতিকে আরও দ্রুত এবং অভিন্ন করবে৷”

তবে চুক্তিটি কার্যকরের জন্য ইউরোপীয় সংসদ এবং সদস্য দেশগুলিকে এটি আনুষ্ঠানিকভাবে গ্রহণ করতে হবে। তথ্যসুত্র :ইনফোমাইগ্রেন্টস

add

ভালো লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর
add

বাংলাদেশে কোরোনা

সর্বশেষ (গত ২৪ ঘন্টার রিপোর্ট)
আক্রান্ত
মৃত্যু
সুস্থ
পরীক্ষা
সর্বমোট
© sylhetkushiara 2020 All rights reserved. কারিগরি সহায়তা: WhatHappen
Theme Customized By BreakingNews